গরুর মাংসেও অ্যান্টিবায়োটিক কমিয়ে আনবে ম্যাকডোনাল্ড’স

ম্যাকডোনাল্ড’স, ওয়ালমার্ট, তাইসনসহ অনেক কোম্পানিই মুরগিতে অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার কমিয়ে আনা অথবা তা একেবারে বন্ধের ঘোষণা দেয়। তারই ধারাবাহিকতায় এবার ভোক্তা কোম্পানিগুলোর সতর্কতায় গরুর মাংসেও অ্যান্টিবায়োটিক কমিয়ে আনার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে ফাস্টফুড চেইন ম্যাকডোনাল্ড’স। খবর এএফপি ও সিবিএস নিউজ এর।

এর কারন সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা যায়, মানবদেহে রোগ প্রতিরোধ সক্ষমতা প্রাকৃতিকভাবেই থাকলেও মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণীর শরীরে অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগের ফলে এ প্রতিরোধ সক্ষমতা কমে আসে এবং একপর্যায়ে ‘সুপারবাগের’ মতো ওষুধপ্রতিরোধী নানা সমস্যায় অবদান রাখে।

এ অবস্থায় অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার নিয়ে বিভিন্ন দেশের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ ডব্লিউএইচও এবং জাতিসংঘের মতো শীর্ষ প্রতিষ্ঠানগুলো সতর্ক করে আসছে। 

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ম্যাকডোনাল্ড’স বিশ্বের বৃহত্তম বার্গার চেইন। বিশ্বের মোট ১২০টি দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে কোম্পানিটি। সম্প্রতি গরুর মাংসে অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার সীমিত করার ক্ষেত্রে কোনো নীতিমালা ঘোষণা না করার জন্য ভোক্তা গ্রুপগুলোর থেকে ‘এফ’ গ্রেড পেয়েছে ম্যাকডোনাল্ড’স। অক্টোবরে প্রকাশিত প্রতিবেদনটি ফুড সেফটি, কনজিউমার রিপোর্টস, ফুড অ্যানিমেল কনসার্নস ট্রাস্ট, ইউএস পিআইআরজি এডুকেশন ফান্ডসহ আরো কয়েকটি সংগঠন এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে; যেখানে মোট ২২টি বার্গার চেইনকে ‘এফ’ গ্রেড দেয়া হয়েছে। এ কারণেই কোম্পানিটি তাদের খাবারে ব্যবহূত গরুর মাংসে অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার কমিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছে।

ম্যাকডোনাল্ড’সের আন্তর্জাতিক ভাইস প্রেসিডেন্ট কিথ কেনি এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ম্যাকডোনাল্ড’স বিশ্বাস করে, অ্যান্টিবায়োটিক সহনশীলতা জনস্বাস্থ্যের খুবই গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার বিষয়টি আমরা খুবই গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছি।’

কোম্পানিটির পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, তাদের তৈরি খাবারে ব্যবহূত গরুর মাংসে অ্যান্টিবায়োটিক কমিয়ে আনতে তিন ধাপের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। 

সূত্র: দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল

এমএম/টিবি/১৮

কমেন্ট করে সাথেই থাকুন