শ্বশুর-শাশুড়ির অত্যাচারে নাটোরের গুরুদাসপুরে ইয়াকুব আলী (৩০) নামে এক যুবকের আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রাতে উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের বিলকাঠর নতুনপাড়া গ্রামে। নিহত ইয়াকুব আলী সিংড়া উপজেলার লাছিয়ার কান্দি গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, তিন বছর আগে নতুনপাড়া গ্রামের মঈনুল ইসলামের মেয়ে শাপলার সঙ্গে ইয়াকুব আলীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্ত্রী শাপলা ও তার বাবা-মা ইয়াকুবকে তাদের বাড়িতে এসে থাকার জন্য চাপ দিতে থাকে।

৪ মাস আগে স্ত্রী শাপলা বাবার বাড়িতে এসে আর যেতে না চাইলে ইয়াকুব বাধ্য হয়ে শ্বশুরবাড়িতে এসে থাকে। সেখানে আসার পর থেকে স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়ি তাকে বিভিন্নভাবে গালিগালাজ এমনকি মারধরও করত।

ঘটনার দিন সন্ধ্যায় শ্বশুর-শ্বাশুড়ির সঙ্গে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্ত্রী তাকে মারধর করে। এরপর স্থানীয় বাজার থেকে কীটনাশক (গ্যাস ট্যাবলেট) কিনে খেয়ে বাড়িতে গিয়ে লুটিয়ে পড়েন।

তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন ও স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

এই ব্যপারে প্রাথমিকভাবে ইউডি মামলা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলে জানিয়েছেন গুরুদাসপুর থানার ওসি সেলিম রেজা।

কমেন্ট করে সাথেই থাকুন