শেষ হয়েছে থ্যাগস অব হিন্দোস্তান। আমির খানের পরবর্তী মিশন ছিল সুভাষ কাপুরের ‘মোগুল’। কিন্তু পরিচালক সুভাষ কাপুরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ রয়েছে জানার পর ছবিটির প্রযোজনা ও অভিনয় থেকে সরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মিস্টার পারফেকশনিস্ট।

অভিনেত্রী গীতিকা ত্যাগী সম্প্রতি আমিরের স্ত্রী কিরণকে টুইটারে একটি অভিযোগে জানিয়েছিলেন সুভাষ কী ভাবে তাকে হেনস্থা করেছিলেন।

যৌনহেনস্থা: আমিরের ফিল্ম বয়কট!
গীতিকা ত্যাগী

কিরণ বলেন, ‘আমির খানের প্রযোজনা সংস্থা সবসময় যৌন হেনস্থা বা শারীরিক নিগ্রহের ঘটনায় ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে বিশ্বাসী। আমাদের কাছে এই খবর আসা মাত্রই সরে আসার সিদ্ধান্ত নিই। কারণ যার সঙ্গে কাজ করতে যাচ্ছি, অভিযোগের আঙুল তার দিকেই।’

আমিরের বয়কটের পর গুলশন কুমারের বায়োপিকের হাল এ বার কে ধরেন, সেটাই দেখার।

যৌনহেনস্থা: আমিরের ফিল্ম বয়কট!
সুভাষ কাপুর ও গীতিকা ত্যাগী

যদিও আদালতের তরফে থেকে এখনও পরিচালকের বিরুদ্ধে কোনও রায় হয়নি। সুভাষ একটি টুইটবার্তায় বলেছেন, আমির খান ও কিরণের সিদ্ধান্তকে তিনি শ্রদ্ধা করেন। আদালতেই প্রমাণ হয়ে যাবে তার কোনও দোষ নেই।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে সুভাষের বিরুদ্ধে এফআইআর করেছিলেন গীতিকা । সে সময় একটি ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছিল। তাতে দেখা গিয়েছিল, তিনি প্রতিবাদ জানাচ্ছেন এবং চড় মারছেন সুভাষকে।

সূত্র: দ্য হিন্দু

এএ/এমএম/টিবি/১৮

সেই ভিডিওটি

কমেন্ট করে সাথেই থাকুন