বুধবার আবারও ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপ

ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আবার সংলাপ করবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও ১৪ দল। আগামী বুধবার (৭ নভেম্বর) বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এ সংলাপ হবে। এতে ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে কয়েকজন সংবিধান বিশেষজ্ঞ থাকবেন।

রবিবার (৪ নভেম্বর) রাতে ১৪ দলের সঙ্গে সংলাপ শেষে এক ব্রিফিংয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘আজ (রবিবার) দুপুরে ড. কামালের কাছ থেকে দ্বিতীয় দফা সংলাপের দাবি জানিয়ে পাঠানো চিঠি আমরা পেয়েছি।’

১৪ দলের সঙ্গে সংলাপের বিষয়ে কাদের বলেন, ‘আমরা অঙ্গীকার করেছি, আমরা একসঙ্গে যেকোনও পরিস্থিতিতে লড়াই করবো। নির্বাচনের লড়াই করবো। আর যদি কোনও অশুভ শক্তি নির্বাচনককে ভণ্ডুল করার অপচেষ্টা করে, সেখানেও আমরা একসঙ্গে লড়াই করে প্রতিরোধ গড়বো।’

আসন বণ্টন নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘নেত্রী একটা কথা অত্যন্ত পরিষ্কারভাবে বলে দিয়েছেন, ‘দেখুন, আমরা নির্বাচনে লড়াই করবো জেতার জন্য। আমাদের প্রতিপক্ষকে আমরা দুর্বল ভাববো না। নির্বাচনি লড়াই কঠিন লড়াই। আমাদের প্রার্থী জনগণের কাছে কতটা গ্রহণযোগ্য, সেটা ভেবে দেখতে হবে এবং উইনেবল প্রার্থী যদি আপনাদের থাকে, তাহলে অবশ্যই মনোনয়ন দেওয়া হবে। আমাদেরও (আওয়ামী লীগ) উইনেবল ও গ্রহণযোগ্য প্রার্থী আছে, তারাই মনোনয়ন পাবে।’

এর আগে ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম সংলাপ শেষে সাংবাদিকদের বলেন, ‘১৪ দল নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রীকে বলেছেন, আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী হবে। সংবিধানের বাইরে এক চুলও যাওয়া যাবে না। অনেক রক্তে রঞ্জিত আমাদের সংবিধান। আমরা আজও প্রত্যয়ের সঙ্গে ঘোষণা করেছি, শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন হবে। তার প্রতি ১৪ দল অকুণ্ঠ সমর্থন ব্যক্ত করেছে। তাই সংবিধানের বাইরে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না; বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়ার প্রশ্ন ওঠে না।’

১৪ দলের মাঝে আসন বণ্টন নিয়ে কোনও আলোচনা হয়েছি কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, ‘এ ব্যাপারে ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রীর ওপর দায়িত্ব ছেড়ে দিয়েছেন। তিনি একটি কথা স্পষ্টভাবে বলেছেন, জোটগতভাবে নির্বাচন করবো। আমরা বলেছি, আপনি যেভাবে সিদ্ধান্ত দেবেন, সেইভাবেই সিদ্ধান্ত মেনে নেবো। আমরা বিশ্বাস করি, আগামী নির্বাচন অত্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে হবে এবং অংশগ্রহণমূলক হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘শেখ হাসিনা যে সংলাপের উদ্যোগ নিয়েছেন, আমরা তাকে স্বাগত জানিয়েছি। সে ব্যাপারে আমরা তাকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছি।’

একটি অশুভ শক্ত এখনও সক্রিয় আছে মন্তব্য করে নাসিম বলেন, ‘তারা নানাভাবে এই নির্বাচনকে ভণ্ডুল করার জন্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তাই জনগণকে এ ব্যাপারে সর্তক ও সজাগ থাকতে হবে।’

বাংলাদেশের ওর্য়ার্কাস পার্টির সভাপতি রাশদে খান মেননও সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপে একথা বলেন। তিনি বলেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ নির্বাচনে যাবো। সংবিধানের ভিত্তিতে একটি গ্রহণযোগ্য সুষ্ঠু নির্বাচন আমাদের দাবি।’

রাত সোয়া ৮টায় সংলাপ শুরু হয়ে শেষ হয় ১০টা ১০ মিনিটে।

এফএম/টিবি/১৮

কমেন্ট করে সাথেই থাকুন