আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তারেক জিয়া যাবজ্জীবন সাজা পাওয়া একজন আসামি। আরেকটা মামলায় তাকে সাত বছর কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। তিনি বিদেশ থেকে বাংলাদেশের নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশ নেবেন এটা হতে পারে না।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে তার নিজ দফতরে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের বলেন, তারেকের বিদেশ থেকে স্কাইপে কথা বলার বিষয়ে আমরা নির্বাচন কমিশনকে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেছিলাম। তাদের যেহেতু আরপিও অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ নেই, প্রয়োজনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আছে তারা ব্যবস্থা নেবে। আর বিষয়টির যদি উপযুক্ত সমাধান না হয় তাহলে আমরা প্রয়োজনে আদালতে যাব।

তিনি বলেন, তারেক রহমানের অনলাইনে বক্তব্য সাইবার অপরাধ হতে পারে। একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি এটা করতে পারে না। তিনি একজন ফেরারি আসামি হয়ে বিদেশ থেকে বাংলাদেশের নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশ নেবেন এটা কীভাবে হয়?

স্কাইপ অ্যাপ বন্ধ কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, এটা বিটিআরসির বিষয়।

এর আগে ওবায়দুল কাদের আরেক ব্রিফিংয়ে বলেছিলেন, আমরা দেখছি তারেকের স্কাইপ ইস্যুতে নির্বাচন কমিশন কী করে। সোমবার এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন থেকে তাদের অবস্থান পরিষ্কার করার পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজ মঙ্গলবার এমন বক্তব্য দেন।

কমেন্ট করে সাথেই থাকুন