সারাদেশে তিন দফায় ৭৪ ঘণ্টা বন্ধ রাখার পর মোবাইল ফোনের ফোর জি ও থ্রি জি ইন্টারনেট সেবা আবার চালু হয়েছে।

একটি মোবাইল অপারেটরের একজন কর্মকর্তা বলেন, মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে বিটিআরসির নির্দেশনা পেয়ে তারা ফোর জি ও থ্রি জি ইন্টারনেট চালু করে দেন।

ইন্টারনেট বন্ধের কারণ ব্যাখ্যায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) জাকির হোসেন খান শনিবার বলেছিলেন, ‘রাষ্ট্রের নিরাপত্তার স্বার্থে ও গুজব প্রতিরোধে’ সরকারের নির্দেশনায় এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ ঘিরে গুজব, অপপ্রচার ঠেকাতে ইন্টারনেট বন্ধের কথা আলোচনায় ছিল বেশ কিছুদিন ধরেই।

এর ধারাবাহিকতায় গত ২৭ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১০টা থেকে পরদিন সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত মোবাইল ইন্টারনেটে ফোর জি ও থ্রি জি সেবা বন্ধ রাখা হয়।

এরপর ভোটের আগের দিন ২৯ ডিসেম্বর এই সেবা ৩৩ ঘণ্টার জন্য বন্ধ করে রাখতে অপারেটরগুলোকে নির্দেশ দেয় বিটিআরসি। সে অনুযায়ী শনিবার বিকাল ৩টার পর থেকেই মোবাইল ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হয়।

তখন পর্যন্ত বিটিআরসি নির্দেশনায় বলা ছিল, ফোর জির ভয়েস ও ডেটা এবং থ্রি জির ডেটা সেবা পুরোপুরি বন্ধ রাখতে হবে। তবে থ্রিজির ভয়েস এবং টু জি ভয়েস ও ডেটা সেবা চালু রাখতে হবে। কিন্তু শনিবার মধ্যরাতে বিটিআরসি টু জি ইন্টারনেট সেবাও বন্ধ করার নির্দেশনা দেয়।

প্রায় ২৭ ঘণ্টা পর রোববার ভোট শেষে সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় মোবাইল ফোন অপারেটররা সব ধরনের মোবাইল ইন্টারনেট চালু করে দেওয়ার নির্দেশনা পায়।

কিন্তু তিন ঘণ্টার মাথায় ফের নতুন নির্দেশনা আসে এবং রাত ৯টায় সারা দেশে ফোর জি ও থ্রি জি ইন্টারনেট আবার বন্ধ করে দেওয়া হয়।

টানা ৩৭ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বাংলাদেশে মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট সেবা ফেরে।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার হিসাবে গত নভেম্বর পর্যন্ত দেশে ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা ছিল ৯ কোটি ১৮ লাখের বেশি; এর মধ্যে ৮ কোটি ৬০ লাখ গ্রাহক মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন।

কমেন্ট করে সাথেই থাকুন