নেইমারকে রিয়ালে দেখতে কষ্ট হবেনা ইনিয়েস্তার!

দুই বছর আগেই দুজন ছিলেন বার্সেলোনার অবিচ্ছেদ্য অংশ। ক্যারিয়ার-সায়াহ্নে এখন ইনিয়েস্তা পাড়ি জমিয়েছেন জাপানে, আর নেইমারের ঠিকানা এখন পিএসজি।

পিএসজি থেকে নেইমার বার্সেলোনার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদে খেলতে আসবেন কি না, এ নিয়ে বেশ সরব গণমাধ্যমগুলো। নেইমারের সাবেক ক্লাব ক্যাপ্টেন ইনিয়েস্তা সে প্রসঙ্গেই জানিয়েছেন, নেইমার রিয়ালে যোগ দিলে কষ্ট হবে না তার।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো জুভেন্টাসে যোগ দেওয়ার পর থেকেই রিয়াল মাদ্রিদ একজন ‘মহাতারকা’র অভাব অনুভব করছে। তেমনই একজন, যিনি যেকোনো পরিস্থিতি থেকে বের করে ম্যাচ জেতাতে পারবেন। তাই বেশ কিছু দিন ধরেই পিএসজি থেকে ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমারকে দলে আনতে চাইছে রিয়াল। কিন্তু বর্তমানে পিএসজিতে খেলা এই তারকা যে কয়েক দিন আগেও রিয়ালের ‘চিরশত্রু’ বার্সেলোনার হয়ে খেলে গেছেন!

নেইমারকে রিয়ালে দেখতে কষ্ট হবেনা ইনিয়েস্তার!তাহলে কীভাবে নেইমার রিয়ালে যাবেন? নেইমার আদৌ যাবেন নাকি যাবেন না সেটি পরের কথা, তবে তার সাবেক বার্সা সতীর্থ আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা জানিয়ে দিয়েছেন, নেইমার রিয়ালে যোগ দিলেও মোটেও কষ্ট হবে না তার!

নেইমারের রিয়ালে যাওয়ার প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ইনিয়েস্তা মোটামুটি আবেগহীন, ‘নেইমার রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিলে আমার কোনো কষ্ট হবে না। আমার মনে হয়, বার্সেলোনার এমনিতেই অনেক ভালো একটা স্কোয়াড আছে, যে স্কোয়াডকে সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে পারলে তারা শিরোপা জিততে পারবে।’

তবে নেইমার যে ঘুরেফিরে আবারও বার্সেলোনাতে আসবেন না, সে সম্ভাবনাটাও উড়িয়ে দেননি তিনি, ‘তাই বলে আমি বলতে পারি না যে নেইমার বার্সায় আসবে না। ফুটবলে যেকোনো কিছুই ঘটতে পারে। নেইমার অবশ্যই বিশ্বমানের একজন খেলোয়াড়, তবে নেইমারের বার্সেলোনায় ফেরত আসার সম্ভাবনা বেশ কম। তাই বলে এমন না যে আমি ওর বার্সেলোনায় ফেরত আসার সম্ভাবনাকে একদম উড়িয়ে দিচ্ছি।’

ইনিয়েস্তা বার্সেলোনা ছেড়েছেন এই মৌসুমের শুরুতে। তার অবস্থান এখন জাপানের লিগে—ভিসেল কোবে ক্লাবে। তিনি কি এখনো বার্সার সতীর্থদের খোঁজ-খবর রাখেন? এ প্রশ্নের জবাবে সাবেক ক্যাপ্টেন জানিয়েছেন, ‘আমার শিডিউলের কারণে আমি বার্সেলোনার খুব বেশি ম্যাচ দেখতে পারি না, কিন্তু সাবেক সতীর্থদের সঙ্গে আমার নিয়মিত যোগাযোগ হয়। এই যেমন কয়েক দিন আগে মেসি হাতের চোটে পড়ল, তাকে তখন আমি টেক্সট মেসেজ করে শুভকামনা জানিয়েছি। মেসি ছাড়াও বুসকেটস, রাকিতিচ, পিকের সঙ্গে আমার নিয়মিত কথাবার্তা হয়।’

এফএম/টিবি/১৮

কমেন্ট করে সাথেই থাকুন